পদত্যাগের হিড়িক চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা বিএনপিতে

বিব্রত সিনিয়র নেতারা পাল্টা কমিটি ঘোষণা

পদত্যাগের হিড়িক পড়েছে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা বিএনপির উপজেলা ও পৌরসভা কমিটিতে। আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণার কয়েক দিনের মধ্যে জেলার দুই শীর্ষ নেতার বিরুদ্ধে স্বেচ্ছাচারিতা, অর্থ লেনদেন এবং অগণতান্ত্রিক কর্মকান্ডের অভিযোগ তুলে পদত্যাগ করেছেন উপজেলা ও পৌরসভা বিএনপির পাঁচ আহ্বায়ক ও সদস্য সচিব। জেলার দুই শীর্ষ নেতার এমন কর্মকান্ডে বিব্রত স্বয়ং আহ্বায়ক কমিটির সিনিয়র নেতারাও। দক্ষিণ জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক আলী আব্বাস বলেন, ‘উপজেলা ও পৌরসভা কমিটি গঠনের বিষয়ে কেন্দ্রের নির্দেশনা ছিল আহ্বায়ক, সদস্য সচিব এবং যুগ্ম আহ্বায়কের যৌথ স্বাক্ষরে কমিটি অনুমোদন দেওয়ার। কিন্তু আহ্বায়ক ও সদস্য সচিব অনৈতিক সুবিধা নিয়ে আমার মতামত ছাড়াই কমিটি ঘোষণা করেছেন। অযোগ্যদের কমিটিতে স্থান দেওয়ার কারণে আহ্বায়ক কমিটি থেকে উপজেলা ও পৌরসভার কয়েকজন আহ্বায়ক ও সদস্য সচিব পদত্যাগ করেছে। তাদের কর্মকান্ড আমাকে বিব্রত করছে।’ জানা যায়, দক্ষিণ জেলা বিএনপির কোন্দল নিরসনে ১৫ মাস আগে আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়। তিন মাসের মধ্যে সম্মেলন করে কমিটি গঠনের নির্দেশনা থাকলেও উল্টো বিবাদে জড়িয়ে পড়েন কমিটির নেতারা। আহ্বায়ক কমিটির নেতাদের মধ্যে মতানৈক্য থাকার কারণে দক্ষিণের সাংগঠনিক কার্যক্রম এক প্রকার থমকে ছিল। আহ্বায়ক কমিটির মতানৈক্যের মধ্যেই গত ৩১ ডিসেম্বর ৫ উপজেলা ও ৪ পৌরসভা বিএনপির আহ্বায়ক ও সদস্য সচিব করে দুই সদস্যের আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করে। এরপর থেকে উপজেলা ও পৌরসভার আহ্বায়ক কমিটি থেকে পদত্যাগের হিড়িক পড়ে। এরই মধ্যে আহ্বায়ক কমিটি থেকে পদত্যাগ করেছেন বোয়ালখালী পৌর মেয়র ও সদ্য ঘোষিত কমিটির আহ্বায়ক আবুল কালাম আবু, বোয়ালখালী উপজেলা আহ্বায়ক কমিটির সদস্য সচিব আবদুল মান্নান, লোহাগাড়া উপজেলা বিএনপির সদস্য সচিব সাজ্জাদুর রহমান, চন্দনাইশ উপজেলা বিএনপির সদস্য সচিব মোহাম্মদ সালাউদ্দিন এবং চন্দনাইশ উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক সিরাজুল ইসলাম। আহ্বায়ক কমিটির আরও কয়েকজন নেতা পদত্যাগের প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানা গেছে। পদত্যাগী নেতাদের অভিযোগ, টাকার বিনিময়ে আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে। তারা টাকার বিনিময়ে নিষ্ক্রিয়দের উপজেলা এবং পৌর কমিটিতে আহ্বায়ক ও সদস্য সচিব করেছেন।

পদবঞ্চিত করা হয়েছে ত্যাগী এবং রাজনৈতিক মামলায় কারাবরণকারী নেতাদের।
দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য মজিবুর রহমান বলেন, ‘জেলা আহ্বায়ক কমিটির আহ্বায়ক ও সদস্য সচিব শুরু থেকেই স্বেচ্ছাচারী ও অগণতান্ত্রিক কাজ করে আসছেন। শীর্ষ দুই নেতার কর্মকান্ডে আহ্বায়ক কমিটির নেতারা বিব্রত। তাদের ঘোষিত আহ্বায়ক কমিটিতে টাকার বিনিময়ে অযোগ্য ও নিষ্ক্রিয়দের স্থান দেওয়া হয়েছে।’

সংবাদ সম্মেলন করে পাল্টা কমিটি ঘোষণা : চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা বিএনপির পদত্যাগকারী এবং পদবঞ্চিতদের নিয়ে ফের ৬ ইউনিটের কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। গতকাল বিকালে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে এ ঘোষণা দেন দক্ষিণ জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক আলী আব্বাস। সংবাদ সম্মেলনে তিনি বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবের রহমান শামীম, দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আবু সুফিয়ান এবং সদস্য সচিব মোস্তাক আহমদের বিরুদ্ধে নানান অভিযোগ করেন। এরপর বাঁশখালী উপজেলা, বাঁশখালী পৌরসভা, বোয়াখালী উপজেলা, বোয়ালখালী উপজেলা ও পৌরসভা, লোহাগাড়া উপজেলা এবং চন্দনাইশ পৌরসভা কমিটি ঘোষণা করেন। ওই কমিটি পদত্যাগকারী সদ্য ঘোষিত কমিটি থেকে পদত্যাগকারীদের সবাই রয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here