বাকেরগঞ্জের পাদ্রীশিবপুর ইউনিয়নের ভূমিদস্যু সন্ত্রাসী রুবেল এর হামলা

21

বাকেরগঞ্জ প্রতিনিধি খান মেহেদী : বাকেরগঞ্জ উপজেলার পাদ্রীশিবপুর ইউনিয়নের পারশিবপুর গ্রামের মানিক মোল্লার দুই কুপুত্র রুবেল ও লিটন এর সন্ত্রাসী কার্যকলাপে এলাকায় অাতংক বিরাজ করছে। ২৭ জুন দুপুরে মৃত সোনা মোল্লার পুত্র মোঃ মালেক মোল্লার বসত ঘরের সামনে উঠানের পাশে ভোগদখলী জমিতে রোপন করা বিভিন্ন জাতের চাড়া গাছ উপড়াইয়া জমি দখলের চেষ্টা চালায়। ঘটনাস্থলে মালেক মোল্লার স্ত্রী বাধা দিলে মানিক মোল্লা বশির খান সহ অজ্ঞাতনামা ভাড়াটে সন্ত্রাসীরা ক্ষিপ্ত হয়ে হাতে থাকা দা লোহার রড সহ বাসের লাঠিসোটা দিয়ে তার উপরে হামলা চালায়।

হামলার মূল পরিকল্পনাকারী সন্ত্রাসী রুবেল তার হাতে থাকা ধারাল দা দিয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে মোসাঃ অালতেঅারা বেগমের মাথায় কোপ দিয়ে রক্তাক্ত জখম করে।

অাহত অালতেঅারা বেগমের ডাকচিৎকার শুনিয়া তাহার ছেলে মেয়ে মোসাঃমনি ও মোঃ ইমরান হোসেন তাকে বাচাতে এগিয়ে অাসলে সন্ত্রাসীরা তাদের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। হামলার এক পর্যায়ে হত্যার উদ্দেশ্যে লিটন মোল্লা মনি বেগমের মাথার উপর কোপ দিলে নিজের জীবন বাঁচাতে ডান হাত দিয়ে ঠেকাতে গেলে তাহার হাত কাটিয়া রক্তাক্ত জখম হয়। এ সময় হামলায় অংশগ্রহণকারী মানিক মোল্লা তার হাতে থাকা বাঁশের লাঠি দিয়া হত্যার উদ্দেশ্য ইমরান হোসেনের মাথার উপর বাড়ি দিয়ে মাথা ফাটিয়ে রক্ত গুরুতর জখম করে। সন্ত্রাসীরা আলতে আরা বেগমের গলায় ও হাতে থাকা ব্যবহারের স্বর্ন অলংকার জোরপূর্বক ছিনিয়ে নেয়। সন্ত্রাসী রুবেল মোল্লা লিটন মোল্লা আহতের পরনে থাকা কাপড় চোপড় টানা হেঁচড়া করিয়া অর্ধনগ্ন কোরিয়া শ্লীলতাহানি করে।

আহতদের ডাক চিৎকারে স্থানীয় লোকজন এসে তাহাদের উদ্ধার কোরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।এ ঘটনায় মোঃ মালেক মোল্লা বাদী হয়ে গত ২৭ জুন আসামিদের বিরুদ্ধে বাকেরগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগকারী মালেক মোল্লা সাংবাদিকদের জানান সন্ত্রাসী ভুমিদস্যু রুবেল এলাকায় চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী কিছুদিন আগে বাকেরগঞ্জ থানা পুলিশের হাতে মাদকসহ গ্রেপ্তার হয়। একের পর এক সন্ত্রাসী কার্যকলাপ করে যাচ্ছে তাই আমরা এখন আতঙ্কে। এই সন্ত্রাসীকে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে সুষ্ঠু বিচারের দাবি জানাই।